শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০২:০৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
ফ্রান্সে বিশ্বনবী (সাঃ) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদে ত্রিশালে বিক্ষোভ স্বামীর সাথে ঝগড়া করে,পরকীয়ার টানে ঘরে ছেড়ে ধর্ষিত গৃহবধূ পঞ্চগড়ে মাটির নিচ থেকে কম্পিউটার উদ্ধার লালমনিরহাটে ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের মৃত্যু আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় শরণখোলা থানার ওসি’র সাথে মতবিনিময় ত্রিশালে তিন প্রকল্পের উদ্বোধন কালীগঞ্জে শিক্ষক তামান্নার গ্রেপ্তার দাবিতে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ পঞ্চগড়ে মাস্ক না পরার অপরাধে ২ ট্রাক্টর চালককে জরিমানা পঞ্চগড়ে মাইক্রোবাস ও ট্রাক্টরের মুখোমুখি সংঘর্ষে নারীসহ ২ নিহত আহত ৮ পাটগ্রাম বাউরার ফুলচান খাবার কিনতে অষ্টমিতে ঘাস বিক্রি করছেন স্বরূপকাঠী রিক্সা ও বউগাড়ীর শ্রমিক লীগের নির্বাচন অনুষ্ঠিত দুর্গাপূজা উপলক্ষে ৬ দিন বন্ধ বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে বাংলাদেশ সম্পাদক ফোরামের শ্রদ্ধা পঞ্চগড়ে ইবতেদায়ী মাদ্রাসা জাতীয়করণের ১দফা দাবিতে মানববন্ধন হাতীবান্ধায় বানভাসি মানুষের মাঝে ত্রান ও বেকার যুবতীর মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ

Salat Times

    Dhaka, Bangladesh
    Saturday, 31st October, 2020
    SalatTime
    Fajr4:47 AM
    Sunrise6:04 AM
    Zuhr11:42 AM
    Asr2:56 PM
    Magrib5:20 PM
    Isha6:37 PM

শরনখোলায় টিআর-কাবিখা প্রকল্পে হরিলুট!

MY SOFT IT Wordpress Plugin Development

Covid 19 latest update

# Cases Deaths Recovered
World 45,722,443 1,190,994 33,162,399
Bangladesh 406,364 5,905 322,703
Data Source: worldometers.info

বাগেরহাটের শরনখোলায় কাজের বিনিময় খাদ্যসহ টাকা উন্নয়ন কর্মসুচী (টিআর-কাবিখা) প্রকল্প বাস্তবায়নে হরিলুটের ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার চারটি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় দু-দফায় (টিআর-কাবিখা) একাধিক প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে গিয়ে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যরা নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করেই সরকারি অর্থ হরিলুটের প্রতিযোগীতা চালিয়েছেন ।

গৃহীত প্রকল্পগুলোর কাজ ৩০শে জুন ২০২০ সালের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও অনেক প্রকল্প বর্তমানে চলমান। কোন কোন প্রকল্পে নামমাত্র কাজ করে প্রকল্প সমাপ্ত করেছেন এবং বাস্তবে না হলেও কিছু প্রকল্প কাগজে-কলমে সমাপ্ত দেখানো হয়েছে।

অনুসন্ধানে জানাগেছে , ২০১৯-২০অর্থ বছরে ১২০টি প্যাকেজের অনুকুলে (টিআর) প্রকল্পে ৭৩লাখ ৪৭হাজার ৫২২টাকা এবং ৩২টি প্যাকেজের আওতায় কাবিখা প্রকল্পের জন্য ৩শতাধিক মেট্রিকটন চাল বরাদ্ধ দেয় ত্রান ও দুর্যোগ মন্ত্রনালয়। উপজেলার চারটি ইউনিয়নের প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করতে গিয়ে কতিপয় অসাধু ব্যক্তি সংশ্লিষ্ট কর্তাব্যক্তিদের সাথে যোগসাজশ করে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার রাস্তার মাটি ভরাট, রাস্তা সংস্কার , বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নসহ নানা প্রকল্পের অর্থ লুটপাট করেছেন।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন বিভাগের তৎকালীন কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের দায়সারা তদারকির কারনে সরকারের লাখ লাখ টাকাসহ বরাদ্ধকৃত চালের অধিকাংইশ লোপাট করা হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, কাবিখা প্রকল্পে উপজেলার রাজাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠ ভরাটের জন্য ৯ মেট্রিকটন চাল বরাদ্ধ হলেও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ নান্না মিয়া বলেন, এ বিষয়ে আমার কিছুই জানা নেই। তবে দেখেছি বিদ্যালয় সংলগ্ন খাল খননের কিছু মাটি স্থানীয় এক ব্যক্তি মাঠে ছিটিয়ে দিয়েছেন। অপরদিকে, চাল রায়েন্দা সিনিয়র মাদ্রাসার মাঠ ভরাটের জন্য ৮মেট্রিকটন চাল বরাদ্ধ হয়। কিন্তু মাঠে নাম মাত্র বালু দিয়ে এক প্রকার দায় সেরেছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

উত্তর সোনাতলা আনছার হাওলাদারের দোকান হতে গুচ্ছ গ্রামের পুকুর পর্যুন্ত একটি রাস্তা সংস্কারের জন্য ১১মেট্রিক টন চাল বরাদ্ধ থাকলেও স্থানীয়রা জানান, অতিরিক্ত কাঁদা হতে মুক্তি পাওয়ার জন্য গ্রামবাসীদের নিকট থেকে চাঁদা তুলে রাস্তাটিতে সামান্য বালু ফেলে রাখা হয়েছে।

অন্যদিকে, টিআর প্রকল্পে ৪০হাজার ৫৪৯ টাকায় রায়েন্দা ইউনিয়নের কদমতলা এলাকার জামাল গাজীর ঘর পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে মাটি ভরাট এবং ৬০হাজার টাকায় ঝিলবুনিয়া এলাকার তোমেজ খাঁনের বাড়ীর কালভার্ট হইতে হারুন খাঁনের বাড়ীর পুকুর পর্যুন্ত রাস্তা ইট সলিংয়ের কথা থাকলেও স্থানীয় বাসিন্দা মোঃ জামাল গাজী ও মোঃ হারুন খাঁন সহ ওই এলাকার কয়েকজন বলেন, সড়ক দুইটিতে চলতি বছরে এধরনের কোন কাজ হয়নি ।
উপজেলা সদর রায়েন্দা বাজারের ভাসানী কিন্ডার গার্ডেনের অনুকুলে ২০হাজার টাকা বরাদ্ধ থাকলেও এ পর্যন্ত কোন টাকা পাননি বলে জানান, ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ ইলিয়াস হোসেন লিটন।
৬০হাজার ৫৩২ টাকায় ধানসাগর ইউনিয়নের ছুটুখার বাজার মসজিদের পার্শের একটি রাস্তা পাইলিংয়ে নামমাত্র কাজ করে বাকী অর্থ হজম করা হয়েছে। এমনকি একই ইউনিয়নের পহলান বাড়ী বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন একটি (পিএসএফ) ৩০হাজারের অধিক টাকায় মেরামতের নির্দেশ থাকলেও নিদিষ্ট সময়ের পর ইতিমধ্যে তিন মাস অতিবাহিত হলেও ওই (পিএসএফটি) অকেজো অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

ধানসাগরের ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মইনুল ইসলাম টিপু বলেন, কোন ইউনিয়নে কি কাজ হয়েছে তা জানি না। আমার ইউনিয়নে আমি ২/৩টি প্রকল্পের কাজ নিজেই নিয়ম অনুসারেই করেছি। এছাড়া ছুটুখার বাজারের ওই প্রকল্পের সম্পুর্ন টাকা এখনো পাইনি। তাই কিছু কাজ বাকি থাকলেও তা করে দেওয়া হবে।

নাম গোপন রাখার শর্তে উপজেলা আওয়ামীলীগের এক নেতা বলেন, উপজেলা জুড়ে টিআর-কাবিখার অধিকাংশ প্রকল্পেই হরিলুটের ঘটনা ঘটেছে। প্রকল্পগুলো তদারকি করা যাদের দ্বায়িত্ব ওই সকল কর্তা ব্যক্তিরা উদাসীন থাকায় প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে হরিলুটের ঘটনা ঘটেছে। কর্মক্ষেত্রে তারা দ্বায়িত্ববান হলে সরকারের উন্নয়নের সু-ফল জনগন ভোগ করতে পারবেন। তাছাড়া দুর্নীতির লাগাম টানা সম্ভব নয়।

প্রকল্পের নানা অনিয়মের বিষয়ে শরনখোলা উপজেলার তৎকালীন প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) রনজিত কুমার সরকার মুঠোফোনে বলেন, আমি এখন ওই উপজেলার দ্বায়িত্বে নেই। তবে গৃহীত প্রকল্পের অধিকাংশ পরিদশর্ন করেছি। সংশ্লিষ্ট ঠিকাদাররা যতটুকু কাজ করেছেন আমি তাদেরকে ততটুকু বিল প্রদান করেছি। এছাড়া কোন ঠিকাদার প্রকল্পের কাজ না করে থাকলে কিংম্বা অনিয়মের আশ্রয় নিলে সর্বপরি তা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয় দেখবেন।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন বলেন, প্রকল্পের বিষয়ে কোন অভিযোগ পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার মতামত কমেন্টস করুন

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

© All rights reserved ©2018-2020 KalerProbaho24

Design & Developed BY N Host BD